মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

দক্ষতাবৃদ্ধি মূলক প্রশিক্ষণের কর্মসূচিঃ

 

                  ক. প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্স

                  খ. অপ্রাতিষ্ঠানিক/ভ্রাম্যমান

 

 ক.প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্স সমূহঃ

 

১.     গবাদিপশু হাঁস-মুরগী পালন, প্রাথমিক চিকিৎসা, মৎস্য চাষ ও কৃষি বিষয়ক                

        প্রশিক্ষণকোর্স-  মেয়াদঃ ২মাস ১৫ দিন, -৮ম শ্রেণী পাশ, ।

২.     মৎস্য চাষ প্রশিক্ষণ কোর্স - মেয়াদ -১মাস,- ৮ম শ্রেণী পাশ।

৩.     পোসাক তৈরী প্রশিক্ষণ কোর্স - মেয়াদ ৩ ও ৬মাস,-৮ম শ্রেণী পাশ।

৪.     কম্পিউটার বেসিক প্রশিক্ষণ কোর্স, -মেয়াদ ৬ মাস,- উচ্চ মাধ্যমিক পাশ।

৫.     ইলেকট্রিক্যাল এন্ড হাউজ ওয়ারিং প্রশিক্ষণ কোর্স,- মেয়াদ ৬মাস,এস,এস,সি/৮ম শ্রেণী,

৭.       রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ার কন্ডিশনিং প্রশিক্ষণ কোর্স, মেয়াদ-৬মাস-এস,এস,সি/৮ম শ্রেণী,

৮.       ইলেকট্রনিক্স  প্রশিক্ষণ কোর্স, মেয়াদ-৬মাস,- এস,এস,সি/৮ম শ্রেণীপাশ।

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, সুনামগঞ্জকর্তৃক প্রদত্ত সেবা কার্যক্রম ;

 

০১।     প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত;

ক) প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেড সমূহ ;

ক্রঃ নং

প্রশিক্ষণ ট্রেডের নাম

কোর্সের মেয়াদ

কোর্স শুরুর মাস

আসন সংখ্যা

শিক্ষাগত যোগ্যতা

কোর্স ফি

০১

গবাদিপশু,হাঁস-মুরগী পালন, প্রাথমিক চিকিৎসা, মৎস্য চাষ ও কৃষি

২মাস ১৫ দিন

প্রতি ১৫ জুলাই-অক্টোবর,

জানুয়ারী -এপ্রিল

৬০ জন (আবাসিক)

৮ম শ্রেণী

১০০/-টাকা

(প্রতি মাসে প্রশিক্ষণার্থীদের ১২০০/-টাকা ভাতা প্রদান করা হয়)।

০২

পোষাক তৈরী

(শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য)

৩/৬মাস

প্রতি জুলাই-সেপ্টে: অক্টে:-ডিসে:ও জানু:-জুন।

৪০ জন (অনাবাসিক)

৮ম শ্রেণী

= ৫০/- টাকা

০৩

মৎস্য চাষ

১ মাস

প্রতি মাসের প্রথমতারিখ

২৫জন (অনাবাসিক)

৮ম শ্রেণী

= ৫০/- টাকা

০৪

কম্পিউটার

৬ মাস

প্রতি জুলাই-ডিসে: ও জানু:-জুন।

৪০ জন (অনাবাসিক)

এইচ.এস.সি

= ১,০০০/- টাকা

০৬

রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ারকন্ডিশনিং

৬ মাস

প্রতি জুলাই-ডিসে: ও জানু:-জুন।

৩০ জন (অনাবাসিক)

এস.এস.সি/

অষ্টম শ্রেণী

= ৩০০/- টাকা

০৭

ইলেকট্রনিক্স

৬ মাস

প্রতি জুলাই-ডিসে: ও জানু:-জুন।

৩০ জন (অনাবাসিক)

এস.এস.সি/

অষ্টম শ্রেণী

= ৩০০/- টাকা

০৮

ইলেকট্রিক্যাল এন্ড হাউজওয়ারিং

৬ মাস

প্রতি জুলাই-ডিসে: ও জানু:-জুন।

৩০ জন (অনাবাসিক)

এস.এস.সি/

অষ্টম শ্রেণী

= ৩০০/- টাকা

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- উপ-পরিচালকের কার্যালয়, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, মাইজবাড়ী রোড, নবীনগর,সুনামগঞ্জ।

 

 

থ) অপ্রাতিষ্ঠানিক (ভ্রাম্যমাণ) ট্রেড সমূহ;

 

 

ক্রঃ নং

প্রশিক্ষণ ট্রেডের নাম

কোর্সের মেয়াদ

শিক্ষাগত যোগ্যতা

০১

পারিবারিক হাঁস-মুরগী পালন

৭/১৫/২১ দিন

৮ম শ্রেণী

০২

ছাগল পালন

-ঐ-

-ঐ-

০৩

গরু মোটা-তাজাকরণ

-ঐ-

-ঐ-

০৪

পারিবারিক গাভী পালন

-ঐ-

-ঐ-

০৫

মৎস্য চাষ

-ঐ-

-ঐ-

০৬

বসত বাড়ীতে সবজি চাষ

-ঐ-

-ঐ-

০৭

নার্সারী বিযয়ক

-ঐ-

-ঐ-

০৮

পোষাক তৈরী

-ঐ-

-ঐ-

০৯

মেোমাছি চাষ

-ঐ-

-ঐ-

 

কুটির শিল্প বিষয়ক

-ঐ-

-ঐ-

 

স্থানীয় চাহিদার ভিত্তিতে ট্রেড নির্ধারণ

-ঐ-

-ঐ-

 

উক্ত অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ সমূহ উপজেলা পর্যায়ে এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও যুব সংগঠনের /ক্লাবে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। অপ্রাতিষ্ঠানিক/ভ্রাম্যমাণ প্রশিক্ষণের জন্য কোন কোর্স ফি এর প্রয়োজন হয়না।

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়,  সংশ্লিষ্ট উপজেলা, সুনামগঞ্জ।

 

০২।     ঋণ কর্মসূচিঃ-

  1. যুব ঋণঃ-প্রশিক্ষিত যুবদের উদ্বুদ্ধকরণ ও প্রশিক্ষণ এর মাধ্যমেআত্মকর্মে নিয়োজিত করা হয় যাতে তারা স্বাবলম্বী হতে পারে। আত্মকর্মেনিয়োজিত হওয়ার জন্য প্রকল্প স্থাপনের নিমিত্তে শুধুমাত্র যুব উন্নয়নঅধিদপ্তর থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদের ঋণ সহায়তা প্রদান করা হয়ে থাকে।ঋণের শ্রেণী বিন্যাস নিম্নরুপঃ

(।)      প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডঃ- একজন যুব/যুব মহিলাকে তার গৃহীতপ্রকল্পের অনুকুলে   ৪০,০০০/-টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১,০০,০০০ টাকা ঋণ প্রদান করা হয়েথাকে।

(।।)       অপ্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডঃ- একজন যুব/যুব মহিলাকে তার গৃহীতপ্রকল্পের অনুকুলে ২০,০০০/-টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫০,০০০টাকা ঋণ প্রদান করা হয়েথাকে।

            সফল ঋণ পরিশোধকারীকে সর্বোচ্চ ৩ বার ঋণ প্রদানের ব্যবস্থা আছে। ঋণ পরিশোধের মেয়াদ ২৪ মাস পর্যন্ত। সর্বোচ্চ ৪ মাসেরগ্রেস পিরিয়ড প্রদান করা হয়ে থাকে। ঋণের সার্ভিস চার্জ ১০% যা ক্রমহ্রাসমান হারে প্রায় অর্ধেক।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ-উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়, সংশ্লিষ্ট উপজেলা।

 

(খ)      পরিবারভিত্তিক ঋণঃ- পারিবারিক ঐতিহ্য রক্ষাসহ মানবিক মূল্যবোধসমুন্নত রাখার লক্ষ্যে পারিবারিকসম্প্রীতি, শ্রদ্ধাবোধ জাগিয়ে তোলারমাধ্যমে পরিবারকে উন্নয়নের একক হিসেবে প্রাধান্য দিয়ে স্বীয় পরিবেশেস্বকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে এ কর্মসূচি পালিত হয়ে আসছে।কর্মসূচির আওতায় ৫ জন সদস্যকে নিয়ে ১টি গ্রুপ এবং ৮ থেকে ১০টি গ্রুপনিয়ে ১টি কেন্দ্র গঠন করা হয়। প্রতি গ্রুপের একজন গ্রুপ প্রধান এবং প্রতিকেন্দ্রে একজন কেন্দ্র প্রধান থাকেন। কেন্দ্রের প্রতি সদস্য ১ম দফায়৮০০০ টাকা, ২য় দফায় ১০,০০০ টাকা, ৩য় দফায় ১২,০০০টাকা, ৪র্থ দফায়১৪,০০০টাকা এবং ৫ম দফায় ১৬,০০০টাকা ঋণ প্রদান করা হয়ে থাকে। সফল ঋণপরিশোধকারী প্রতি গ্রুপ/পরিবারের ১ জনকে প্রয়োজনে মাত্র একবার ৩০,০০০ টাকাথেকে ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত এন্টারপ্রাইজ ঋণ প্রদান করা হয়ে থাকে। ঋণেরসার্ভিস চার্জ ক্রমহ্রাসমান হারে ৫% যা ঋণ পরিশোধের পর শেষ ২ কিস্তিতেপরিশোধযোগ্য।

 

যোগাযোগেঠিকানাঃ-উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয দোয়ারাবাজার,সুনামগঞ্জ।

 

০৩।     যুব সংগঠন তালিকাভূক্তিকরণ ;

          যুব সংগঠন সমূহকে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দেশেরআর্থ-সামাজিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে সম্পৃক্তকরণের মূল দায়িত্ব যুব উন্নয়নঅধিদপ্তর পালন করে থাকে। দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় যুব সংগঠন সহযোগীশক্তি হিসেবে বলিষ্ঠ অবদান রাখতে সক্ষম। এরই অংশ হিসেবে বেসরকারীস্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনসমূহকে দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডে আরও সক্রিয়ভাবেঅংশগ্রহন করানোর লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক তালিকাভূক্তি করাহয়।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- উপ-পরিচালকের কার্যালয়, যুব উন্নয়নঅধিদপ্তর ও সংশ্লিষ্টউপজেলা।

 

০৪।     যুব সংগঠনকে অনুদান প্রদানঃ- যুব সংগঠন সমূহকে কর্মসূচিবাস্তবায়নের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদানের নিমিত্ত যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রণালয় কর্তৃক যুব কল্যাণ তহবিল হতে প্রতি বছর অনুদান প্রদান করা হয়েথাকে। তাছাড়া কর্মসূচির সুষ্ঠু বাস্তবায়নের জন্য অনুন্নয়ন খাত থেকেওপ্রতি বছর অনুদান দেয়া হয়ে থাকে।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ-উপ-পরিচালকের কার্যালয়, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, মাইজবাড়ী রোড,নবীনগর, সুনামগঞ্জও উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়, সংশ্লিষ্টউপজেলা।

 

০৫। সার্ক ইয়ূথ এওয়ার্ড প্রদানঃ- দক্ষিণ এশিয় অঞ্চলে যুবদের সৃজনশীল ওউৎসাহ ব্যাঞ্জক যুব কার্যক্রমের স্বীকৃতি স্বরুপ ১৯৯৭ সাল থেকে ‘‘সার্কইয়ূথ এওয়ার্ড ’’স্কীম চালু করা হয়। প্রতি বছর সার্ক সচিবালয় থেকেবাংলাদেশেও সমাজ উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে অসাধারন কৃতিত্বের জন্য ‘‘সার্কইয়ূথ এওয়ার্ড’’ প্রদান করা হয়।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক/উপ-পরিচালক (বাস্তবায়ন), জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক/সহকারী পরিচালক এবং উপজেলা যুবউন্নয়ন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

 

০৬।  কমনওয়েলথ যুব পুরস্কার প্রদানঃ- যুব/যুব সংগঠকদের যুব উন্নয়নকর্মকান্ডে অবদান/যুব সংগঠনের মাধ্যমে সমাজ উন্নয়ন কর্মকান্ড, আদিবাসীযুবদের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড, যুব সংগঠনের মাধ্যমে প্রকল্পভিত্তিককমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ও স্বনির্ভর কার্যক্রমের জন্য বাংলাদেশী যুব /যুবসংগঠনকে ‘‘কমনওয়েলথ ইয়ুথ এওয়ার্ড ’’প্রদান করা হয়।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক/উপ-পরিচালক (বাস্তবায়ন), জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক/সহকারী পরিচালক এবং উপজেলা যুবউন্নয়ন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

 

০৭।     জাতীয় যুব পুরস্কার প্রদানঃ- যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে যে সকলযুবক/যুব মহিলা প্রশিক্ষণ ও ঋণ গ্রহন করে আত্মকর্মসংস্থানে সফল হয়ে সমাজেদৃষ্টান্ত স্থাপন করতে সক্ষম হন তাদের কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ প্রতি বছরসর্বমোট ১৬ জন সফল যুব/যুব মহিলাকে জাতীয় যুব পুরস্কার প্রদান করা হয়।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- উপ-পরিচালকের কার্যালয়,যুব উন্নয়ন  সংশ্লিষ্টও সংশ্লিষ্ট উপজেলা।

 

০৮।  নেটওয়ার্কিং জোরদারকরণঃ- যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও বেসরকারীস্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনের মধ্যে কর্মসূচিভিত্তিক নেটওয়ার্কিং জোরদারকরণেরলক্ষ্যে প্রতি উপজেলা থেকে কম পক্ষে ২টি যুব ক্লাব নির্বাচনের কার্যক্রমগ্রহন করা হয়েছে। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন থাকলেও ভবিষ্যতে যুব ক্লাবনির্বাচন সংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়টিও বিবেচনায় রয়েছে।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ-উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়, সংশ্লিষ্ট উপজেলা।

 

০৯। তথ্য প্রদানঃ- যুব  উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ, ঋণ এবং যে কোন কার্যক্রম সম্পর্কিত তথ্য প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

যোগাযোগের ঠিকানাঃ-জেলা পর্যায়ে উপ-পরিচালক/ডেপুটি কো-অর্ডিনেটর/সহকারীপরিচালক ও দায়িত্ব প্রাপ্ত তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা এবং উপজেলাপর্যায়ে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

ছবি


সংযুক্তি